আজ ২৫শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই জুলাই, ২০২০ ইং

সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন যুবলীগ নেত্রী!

নওগাঁর পত্নীতলায় মমতাজ বেগম (সাথী) নামে এক নারী সাংবাদিককে চাঁদাবাজির সময় হাতেনাতে আটকের পর পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা। উপজেলার নজিপুর পৌর শহর থেকে গত বৃহস্পতিবার তাকে আটক করা হয়। মমতাজ বেগম রাণীনগর উপজেলা মহিলা যুবলীগের সভাপতি।

জানা গেছে, কথিত নারী সাংবাদিক মমতাজ বেগম চ্যানেল ৬৯ টিভির নওগাঁ জেলা সংবাদদাতা হিসেবে মাস খানেক আগে দায়িত্ব পেয়েছেন। সাংবাদিক পরিচয়ে তিনি জেলার বিভিন্ন বেকারি, মিষ্টির দোকান ও ফ্যাক্টরিতে গিয়ে ক্যামেরাম্যান জাকারিয়া হোসেনের (৩০) সহায়তায় অনিয়মের খবর প্রচারের হুমকি দিয়ে বহুদিন ধরে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছেন।
এরই ধারাবাহিকতায় (২৬ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার পত্নীতলা উপজেলার নজিপুরে মিষ্টির দোকানে গিয়ে চাঁদাবাজি করার সময় তাদের ধরে উত্তেজিত জনতা পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
পরে পত্নীতলা থানা পুলিশ রাত সাড়ে ৮টার দিকে কথিত সাংবাদিক মমতাজ সাথী ও তার সহযোগী ক্যামেরাম্যান জাকারিয়াকে ছেড়ে দেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মমতাজ বেগম রাণীনগর উপজেলা মহিলা যুবলীগের সভাপতি। তিনি উপজেলার দাউদপুর গ্রামের আশিকুজ্জামানের (বিপ্লব) স্ত্রী।
নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মমতাজ বেগমের স্বামী প্রায় দুই বছর ধরে অস্ত্র ও মাদক মামলায় কারাগারে রয়েছেন।
বিশেষ একটি সূত্রে জানা যায়, মমতাজের বিরুদ্ধেও একাধিক মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে মোটা অঙ্কের অর্থ আদায়ের অভিযোগে কোর্টে মামলা বিচারাধীন রয়েছে।
নির্ভরযোগ্য আরো একটি সূত্র জানায়, ইতোপূর্বে চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগের প্রমাণ থাকায় রাণীনগর প্রেসক্লাব থেকে মমতাজ বেগমকে গত ২০১৬ সালে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়।
পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল কুমার চক্রবর্তী জানান, সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে মমতাজ বেগম ও তার ক্যামেরাপারসন জাকারিয়াকে আটকের পর পুলিশের হাতে তুলে দেয় স্থানীয় জনতা। পরে ভুক্তভোগীরা চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা না করায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরও খবর

juboraj.com